মোবাশ্বের আলী ।

মোবাশ্বের আলি (১ জানুয়ারি ১৯৩১ – ৯ নভেম্বর ২০০৫) হলেন একজন বাংলাদেশী সাহিত্যিক।

জন্ম শিক্ষাজীবন

মোবাশ্বের আলী ১৯৩১ সালের ১ জানুয়ারি কুমিল্লা শহরের বাগিচাগাঁওয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম নেওয়াজেস আলী ও মাতার নাম নসিবুননেসা বেগম। তার পিত আইনজীবি ছিলেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রবেশিকা, ১৯৪৮ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, ১৯৫১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য স্নাতক সম্মান এবং ১৯৫২ সালে স্নাতকোত্তর পাশ করেন। তিনি ভাষা আন্দোলনেও সরাসরি অংশগ্রহণ করেন।

পারিবারিক পরিচিতি

১৯৬৩ সালে ময়মনসিংহ নিবাসী খুরশিদা খাতুনকে বিয়ে করেন। তিনটি ছেলে সন্তানের মধ্যে ছোট ছেলে শিশু অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন, মেঝ ছেলে প্রতিবন্ধী এবং বড় ছেলে প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাহবুব।

কর্মজীবন

তিনি আজীবন শিক্ষক ছিলেন। ১৯৫৩ সালে তৎকালিন ময়মনসিংহ জেলা নেত্রকোনা কলেজে বাংলা বিভাগে অধ্যাপনা পদে কর্মজীবন শুরু করেন। ১৯৫৫ সালে যশোর এম.এম. কলেজ (মাইকেল মধুসূদন কলেজ)-এ বাংলা বিভাগে যোগদান করেন। ১৯৫৮ সারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের বাংলা বিভাগে যোগদান করে একটানা ২০ বছর চাকুরি করেছেন। পরে তিনি এ কলেজের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হন। ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে উপাধ্যক্ষ হিসেবে খুলনা বি.এল. সরকারি কলেজে যোগদান করেন। ১৯৮১ সালে তিনি চট্টগ্রাম সরকারি মুহাম্মদ মহসীন কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে যোগদান করেন এবং ৩১ ডিসেম্বর ১৯৮৭ সালে চাকুরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

শেষ জীবনে গবেষণা ও লেখালেখি করেই অতিবাহিত করেছেন।

সাহিত্যকর্ম

ছাত্রাবস্থা থেকে অধ্যাপনায় বিশ্ব-সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চা অব্যাহত রাখেন। ‘সমকাল’-এ লেখা দিয়ে তার লেখক-জীবন শুরু। সিকান্দর আবু জাফরের অনুরোধে তার গ্রীক সাহিত্য আলোচনা ও অনুবাদের সূত্রপাত।

মোবাশ্বের আলী ।

এখানে আছে ০১টি বই ।
০১টি বই এর তালিকা নিচে দেয়া হলো :

সুচিপত্র 
১.নজরুল ও তিন নারী  ।
error: Content is protected !!